পরস্ত্রী (দাই নেইবারস ওয়াইফ) – গে ট্যালেসি (পর্ব-০৩)
সাহিত্যে, গল্প, উপন্যাসের যৌনতা, নগ্নতা, যৌন মিলন এবং নারী দেহ, প্রেম, নারী পুরুষের দৈহিক সম্পার্কের বর্ণনা সম্বলিত লেখার সংকলন

December 26, 2020 | By Admin | Filed in: বিখ্যাত লেখকদের সাহিত্যে যৌনতা.

Parostri-Thy-Neighbors-Wife-Gay-Talese-218x300

……..মিলড্রেড বলে যে, প্রথম লােকটার সঙ্গে পরিচয় হয় তার গাড়িতে চড়ে শিকাগাে যাওয়ার উদ্দেশ্যে। রেলস্টেশনে যাওয়ার পথে তারা পরস্পরের কথা উপভােগ করেছে এবং শিকাগােতে সাপ্তাহিক ছুটি কাটিয়ে আসার পর এক সাপ্তাহিক ছুটির রাতে তারা ব্রিজ খেলতে শুরু করে। মিলড্রেডএর স্কুলের অন্যান্য শিক্ষকরাও তখন উপস্থিত ছিল। অন্য একদিন গাড়ির ভেতরে সে মিলড্রেডকে চুমু খায় এবং সঙ্গে সঙ্গে মিলড্রেড সাড়া দেয় এবং যতক্ষণ যৌনমিলনের সুখ পেয়ে সে শান্ত না হয় ততক্ষণ লােকটা চুমু খাওয়া থামায় না।…….

…সে স্মরণ করে তার যৌবনের মহামূল্যবান স্বপ্ন যা হারিয়ে গেছে এবং আরও হারিয়েছে স্ত্রীর প্রতি যৌনাকাঙ্ক্ষা। কিন্তু মিলড্রেড নিজেকেই এজন্য দায়ী করে। যৌনমিলনের ইচ্ছা তার খুব কমই হত। কারণ তাদের সঙ্গমকালীন শব্দ হেফনারের পিতামাতা সহজেই শুনতে পাবে পাশের রুম থেকে। এছাড়া মিলড্রেড আরও বিশ্বাস করত, অন্য পুরুষের সঙ্গে তার যৌনমিলনের কারণেই হেফনারের রােমান্টিকতা উবে গেছে এবং একই সঙ্গে মিলড্রেডের শৈশবের ক্যাথলিক ধ্যান-ধারণা তার ভেতরে যৌনবিষয়ক অপরাধবােধের জন্ম দিয়েছে। সে ঐ লােকটির সঙ্গে পাপপূর্ণ যৌনমিলনে অংশ নিয়েছিল এবং সেকারণেই তার এখন শাস্তি হচ্ছে।…….

……..ফটো-সাংবাদিকতার দোহাই দিয়ে ১৯৩০ সালের শেষদিকে লাইফ এবং লুক নিজেদের ন্যায্যতা তুলে ধরার চেষ্টা করে। তারা সেই বিতর্কিত ছবিটি ছাপে অভিনেত্রী হেডি কেইসলারের যেখানে সে উলঙ্গ হয়ে সাঁতার কাটছে এবং তার নগ্ন স্তনের বোঁটা স্তন্যবলয়সহ দৃশ্যমান-ছবিটি চেকোস্লোভাকিয়ার পরমানন্দ ছবির একটি দৃশ্য। এই ছবির প্রতিক্রিয়া ছিল খুবই চাঞ্চল্যকর। ফলে তা নিষিদ্ধ করা হয়।……….

……..লাইফ পত্রিকা ১৯৪৩ সালে হাস্যরত এক স্বর্ণকেশী মডেলের ছবি ছাপে। তার নাম চিলি উইলিয়ামস, যার বড় বড় ফোটার ফুটকিওয়ালা স্নানের পােশাকটা তার উঁচু হয়ে ওঠা যােনিবেদির কাছে সামান্য ভেতরের দিকে গোঁজা।…….

………অনানুষ্ঠানিক পত্রিকাগুলােও একই অধিকার দাবি করে। তার মধ্যে একটি হচ্ছে, মডার্ন সানবাদিং এবং হাইজিন। পত্রিকা দুটির প্রকাশক হচ্ছে জর্জ ভন রােজেন। সে ডাকবিভাগের নীতিমালা মেনে যৌনকেশসহ মেয়েদের ছবি এখন আর ছাপে না। সে ছাপে বিশিষ্ট সুন্দরী স্বাস্থ্যবর্তী ও নধরকান্তি যুবতীদের পরিপূর্ণ স্তন বোঁটাসহ। এসব নারীর কেউ কেউ ঘরের ভেতরে ছবি তুলে তাদের নগ্নতাবাদী প্রথাকে লঙ্ঘন করেছে। তবে এরকম কথাও শােনা গেছে যে, আকর্ষণীয় নগ্নতাবাদীদেরকে জোগাড় করা সম্ভব না হলে সে স্ট্রিপার (নিজের পােশাক উন্মােচনকারী)-দের ছবি ছাপতেও অনীহা প্রকাশ করে না।…….

………….হেফনার বিভিন্ন আর্টবুকে নমস্য শিল্পীদের আঁকা নগ্ন ছবির রিপ্রােডাকশন পরীক্ষা করে দেখে। এসব শিল্পীদের ভেতরে লিওনার্দো দ্য ভিঞ্চি, রাফায়েল, টাইটান, ইনগ্রেস, রােনায়, রুবেন্স, মানে, কৌরবেট এবং আরও অনেক অখ্যাত শিল্পী, যারা প্রায়ই অনাবৃত যৌনাঙ্গসহ শরীরের ছবি এঁকেছে। এদের ছবিতে সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য পেয়েছে স্তন, আর চোখগুলাে সরাসরি দর্শকদের দিকে, বিশেষ করে ভন রােজেনের আর্ট পত্রিকায় যেসব ছবি ছাপা হত অন্তত তার চেয়ে। ১৮৬৫ সালে আঁকা মানে-এর একটা ছবিতে এক নগ্ননারীর কামলালসাপূর্ণ চাহনি খুবই উত্তেজক অথবা কৌরবেট-এর আঁকা নধরকান্তি উত্তেজক দুই নারী পরস্পরকে আলিঙ্গন করছে বিছানায় কিংবা রুবেন্সের আঁকা নগ্ন নারী হেলান দিয়ে আছে বালিশে, হাতদুটো মাথার পেছনে, স্তনের বোঁটা ঊর্ধ্বমুখী, সে স্থিরদৃষ্টিতে চেয়ে আছে দর্শকের দিকে এবং তার কালাে কুচকুচে যৌনকেশ দেখা যাচ্ছে।…….

………..এসব পত্রিকায় নগ্নছবি ছাপা হয় ক্যালিফোর্নিয়ার দীর্ঘদেহী স্বর্ণকেশী আকর্ষণীয় নারী আইরিশ ম্যাককাল্লা এবং নিষ্ঠুর প্রকৃতির কর্তৃত্বপরায়ণ ফ্লোরিডার শ্যামাঙ্গিনী বেত্তি পেজ। অন্যান্য মডেলের চেয়ে এই দুই নারী ছিল যুদ্ধোত্তর সময়ে কয়েক হাজার পুরুষের হস্তমৈথুনের খােরাক এবং ডায়ানে ওয়েবারের আবির্ভাবের পূর্বপর্যন্ত প্রায় পঞ্চাশের দশক জুড়ে তারা পুরুষকে উত্তেজিত করেছে। আর ডায়ানে ওয়েবার সানসাইন অ্যান্ড হেলথ এবং ভন রােজেনের পত্রিকায় নগ্ন হতে থাকে। যত দিন যায় তত তার পােশাক ছােট হতে থাকে। ফলে ৩ার গােপনাঙ্গগুলাে ক্রমান্বয়ে পুরুষের যৌনমিলনের লােভ বাড়িয়ে তােলে।……….

……….হেফনার পরিকল্পনা করত, তার পত্রিকার হেডলাইন সাম্প্রতিক সময়ের যৌনতাকে অধিক প্রকাশ করবে। এই পত্রিকায় ছাপা হত সাম্প্রতিক সময়ের যৌনতা পরিবর্তন সংক্রান্ত অপারেশনের খবর, ক্যাফে সােসাইটির পতিতাচক্রের খবর এবং আমেরিকার নারীদের ওপর ১৯৫৩ সালে প্রকাশিত কিনযের প্রতিবেদন। কিনযের পরিসংখ্যান জানায়, সমস্ত নারীদের ভেতরে শতকরা ৫০ ভাগ এবং কলেজ ছাত্রীদের ভেতরে শতকরা ৬০ ভাগ বিয়ের আগেই যৌনমিলনের অভিজ্ঞতা লাভ করে এবং সমস্ত বিবাহিত নারীর ভেতরে শতকরা ২৫ ভাগ স্বামী ছাড়া অন্য পুরুষের সঙ্গে যৌনবাসনা চরিতার্থ করে। মােট নারী জনসংখ্যার অর্ধেকেরও বেশি নারী হস্তমৈথুন করে, শতকরা ৪৩ ভাগ মুখমৈথুনে অভিজ্ঞতা অর্জন করে এবং মােট নারী জনসংখ্যার শতকরা ১৩ ভাগ কমপক্ষে একবার হলেও অন্য পুরুষের সঙ্গে যৌনমিলনের অভিজ্ঞতা লাভ করেছে, যার ফলাফল ছিল রাগমােচন।…

…..প্লেবয়ের পাঠকের সংখ্যা প্রায় তিরিশ হাজার, যে সংখ্যাতে মেরেলিন মনরাের নগ্নছবি ছাপা হয়েছিল। কয়েকটি পিন-আপ ছবির মধ্যে এটি ছিল একটি এবং অন্য তিনটি নগ্ন ছবির জন্য সে পােজ দিয়েছিল ১৯৪৯ সালে যখন সে হলিউডে নায়িকা। পত্রিকায় বিজ্ঞাপন পড়ে হেফনার জানতে পারে, শিকাগাের এক ক্যালেন্ডার প্রস্তুতকারী এই ছবির মালিক এবং আগে থেকে যােগাযােগ না করেই সে সেখানে গিয়ে উপস্থিত হয় এবং প্রােপাইটারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে সবচেয়ে উত্তেজক ছবিটি ৫০০ ডলারের বিনিময়ে কেনে। এই ছবিতে মনরাে তার দুহাত দুদিকে বাড়িয়ে রেখেছে, হাস্যরত মুখমণ্ডল, খােলা স্তনদুটি লাল বোঁটাসহ ঊর্ধ্বমুখী, যৌনকেশ অল্প অল্প দেখা যাচ্ছে। সেইসঙ্গে দেখা যাচ্ছে নধর নিতম্বের আংশিক।…….

…….রাতের বেলা শহরে ঘুরে বেড়ানাের অভ্যাস হেফনার পরিত্যাগ করেছে। সে এখন প্লেবয় ভবনের ভেতরেই থাকে সারাদিন, পুরাে সপ্তাহ। সে তার কাপড়চোপড় সেখানেই রাখে, সরবরাহকৃত খাবার খায় এবং অফিসের বেডরুমেই মেয়েদের সঙ্গে যৌনমিলন সম্পন্ন করে এবং তারপর নিজের টেবিলে বসে লেখার পাণ্ডুলিপি পড়ে, ছবির ক্যাপশন লেখে, হেডলাইন ঠিক করে এবং পরীক্ষা করে কাঙ্ক্ষিত প্লেমেট (যৌনখেলার সঙ্গী)-এর রঙিন ট্রান্সপারেন্সি।…….

………তারা পরস্পরের সঙ্গ উপভােগ করতে থাকে এবং নিয়মিত নির্জনে সময় কাটায় এবং হেফনারের অফিসের বেডরুমে চলে যৌনমিলন। চার্লিন সবরকমভাবে এই পত্রিকাকে সাহায্য করতে চায় এবং নির্দিষ্টভাবে খুশি করতে চায় হিউ হেফনারকে, তােষামােদ করতে চায় তার মনােযােগ আকর্ষণ করতে, ভীত হয় হেফনারের সাফল্যে এবং তাকে যখন হেফনার প্রস্তাব দেয় প্লেবয় জুলাই সংখ্যায় প্লেমেট হওয়ার জন্য, তখন সে তাকে নিরাশ করে না।

এসময় হেফনার তাকে একটা ক্রিস্টমাস ট্রি’র নিচে পােজ দিতে বলে। সে তার নগ্ন শরীর গহনা দিয়ে সাজিয়ে দেয় এবং সবচেয়ে উজ্জ্বলতর করে তােলে তার বিশাল স্তনদুটো।…………

…………পুরুষটা মেয়েটির দিকে পেছন ফেরা অবস্থায়ই বিছানা থেকে নেমে গেল- নগ্ন, শুভ্র এবং ছিমছাম তার শরীর এবং সে হেঁটে গেল জানালার দিকে। একটু থামল, জানালার পর্দা তুলল এবং এক মুহূর্ত বাইরের দিকে তাকাল। পুরুষটির পেছন দিকটা ছিল সাদা এবং সুন্দর। তার ছােটখাট পেলব পুরুষালি পাছা অপরূপ। পেছন থেকে দেখেও তাকে বেশ শক্তিশালী মনে হচ্ছে।

নতুন ভিডিও গল্প!


Tags: , , , ,