সিনিয়র আপু যখন বউ (পর্ব-৩০)

January 15, 2021 | By Admin | Filed in: সিনিয়র আপু যখন বউ.

মহিলাটিকে লক্ষ করে বললাম কাকে চাই,, মহিলাটি কিছুক্ষণ আমার দিকে তাকিয়ে হঠাৎ করে আমাকে শক্ত করে জড়িয়ে ধরলো,, আমি বলতে লাগলাম আরে আন্টি কি করছেন আমার শ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছে তো, ছাড়ুন আমাকে,কিন্তু মহিলাটি আমাকে আরো শক্ত করে জরিয়ে ধরলো,,নাহ আর পারছিনা এবার বুঝি দমটা আটকে যাবে,,,অনেক কষ্ট করে বললাম,,আরে আন্টি আমার দম আটকে যাচ্ছে,, ছাড়ুন আমাকে সাথে সাথে আমাকে ছেড়ে দিয়ে মুখের পর্দা টা তুলল আর বলতে লাগলো,, শয়তান আমি আন্টি না,,আমি তোমার ঈশিতা এ কথা বলে আবারও জড়িয়ে ধরল,,, এবার কিছু একটা সস্তিত্ব পাচ্ছি,,৪ বছরের জমিয়ে রাখা ভালবাসার অনুভূতিটা আবেগ হয়ে একসাথে বেরিয়ে আসতে চাচ্ছে,,, কিছুক্ষণ জড়িয়ে ধরে রাখার পরে বলতে লাগলো,, দেখি তোমাকে,, আমি তো বিশ্বাস করতে পারছি না তুমি আমার সামনে দাঁড়িয়ে আছো,,, আমি যা ভেবেছি তাই তুমি আগের চেয়ে খুব সুন্দর হয়ে গেছো কিন্তু চেহারাটা সেই পিচ্চি পিচ্চি রয়ে গেছে,,,

কি হল কথা বল না কেন (((ইশিতা)))
কি বলবো ((আমি))
কি বলবো মানে তুমি বলেছিলে 15 দিন পরে আসবে,,,কিন্তু হঠাৎ করে চলে আসছো,,তাহলে আমাকে মিথ্যা বলেছিলে কেন,, আর তুমি এসে আমাদের বাসায় গিয়ে আমাকে না দেখেই চলে আসলে,,আমি কি কষ্ট করে শাড়িটা পড়েছিলাম,,আমি কি আর জানতাম তুমি আসছো,,
কি হল চুপ করে আছো কথা বলো,, নাকি চেহারার সাথে মন দিল সব পাল্টে ফেলেছো,, আমি ঠিক ঠায় দাঁড়িয়ে রইলাম,,কোন কথা বলছি না,,,আসলে ৪বছরে ভালবাসার জন্য বেকুল হওয়া মনটা,, কিছু মুহূর্ত আগে ঈশিতার কাজ কর্মের দৃশ্যগুলো দেখে,,,ভালবাসার জন্য বেকুল হওয়া মনটা হঠাৎ করে কালো ছোট্ট একটা দুঃখ এসে ভির করেছে,,,

আম্মু হঠাৎ করে ঈশিতা কন্ঠ শুনে বলতে লাগলো ঈশিতা তুই কখন আসলি,ইশিতা আম্মুর কথার জবাব দিচ্ছিলো,,তাদের মাঝ খানে আমি আম্মুকে লক্ষ্য করে বললাম আমার মাথা প্রচন্ড ব্যথা করতেছে আমাকে এক কাপ কফি বানিয়ে দাও,,
আমি আমার রুমে সোফায় বসে মোবাইল টিপতে লাগলাম,,, ঈশিতা আম্মুর হাত থেকে কফির কাপটা নিয়ে আমার সামনে গিয়ে দাঁড়ালো তারপর আমার হাতে কাপটা দিয়ে আমার গা ঘেসে বসলো,, আমি মোবাইলটা পকেটে রেখে কফির মগে চমুক দিচ্ছি,,, ইশিতা ৪বছর পর আমার এতো কাছে আসার পরে ও আমার ভাবমূর্তি অনুভূতির-feelings না পেয়ে বলতে লাগলো,,কি হলো তুমি আমার সাথে কথা বলছো না কেন,,,তুমি কোন কিছুর জন্য আমার প্রতি অসন্তুষ্ট,,, আমি ইশিতার কথা শুনে একবার ইশিতার দিকে ঘুড়ে তাকালাম,,

কি হল এভাবে তাকালে কেন কথা বলো,,তুমি কি বুবা হয়েগিছো,,,তুমি আমার সাথে কথা বলছোনা,, মনে হচ্ছে আমার গলায় বিশাল বড় একটা কাটা আটকে আছে,,,

আমার ভাল লাগছে না,,কথা বলনা চুপ করে থাকো,((,আমি)

মাথা কি বেশি ব্যাথা করছে,,তাহলে কফি খাওয়ার দরকার নাই,, আমি কমপ্লেক্স নিয়ে আসছি,, কম্প্লেক্স খেয়ে ঔষধ খেয়ে একটু রেস্ট করো,,দেখবে মাথা ব্যাথা চলে যাবে,,
ইশিতা কমপ্লেক্স দুধ চিনি আর ট্যাবলেট নিয়ে আসলো এবং বলতে লাগলো,,,এগুলো খেয়ে ঔষধ খেয়ে একটু রেস্ট করো,,,আমি ইশিতার হাত থেকে ট্যাবলেটা নিয়ে খেয়ে ফেললাম,,ইশিতা বলেতে লাগলো খালি পেটে ট্যাবলেট খেয়েছো শরিল তো আরো খারাপ করবে,,
আমি কোন কথা বললাম না সোজা বিছানায় শুয়ে পড়লাম,,ইশিতা হয়তো এটা বুঝছে যে আমার মাথা ব্যাথা করছে,তাই ওর সাথে কথা বলছিনা,,,আসল কারন তো আর জানে না,,,,

ইশিতা আসতে আসতে আমার মাথা পাশে গিয়ে বসলো,,তার পর ওর নরম হাতটা আমার কপালে রাখলো,,৪বছর পর ভালবাসার মানুষের হাতের স্পর্শ পেয়ে অনুভূতিহীন ভালবাসাটা যেন জাগা দিয়ে উঠলো,, পরক্ষণে দুচোখে ঈশিতা শাকিবের সাথে মোটরসাইকেলে লেপ্টে যাওয়া দৃশ্যটা ভেসে উঠলো,,, আমার একটা হাত দিয়ে ইশিতার হাতটা সরালাম,,এবং বললাম ধরবানা আমাকে,,আমার কেমন যেন লাগে,,
কি বল তুমি,, তোমার মাথা ব্যাথা করছে আমি তোমায় হাত বুলিয়ে দিচ্ছি, তোমার তো আরাম লাগার কথা,,,((ইশিতা))

তোমাকে আমি বলছি হাত বুলিয়ে দিতে,,(আমি)

((ইশিতা))এরকম করছো কেন তুমি আমার সাথে,,সত্যিই তোমার কিছু হয়েছে,,৪বছর পর আমি তোমার এত কাছে কিন্তু তোমার কোন অনুভূতি নাই,,

((আমি))শুন তোমার কথার উত্তর আমি দিতে পারবো না,,আমার মাথা ব্যাথা করছে যাও এখান থেকে,,,

((ইশিতা))না আমি যাবো না,, সত্যি করে বলল তোমার কি হয়েছে,,

((আমি))আমার কিচ্ছু হয়নি এখান থেকে যেতে বলেছি তোমাকে,,,

((ইশিতা))না আমি যাবো না,,
যাবে না তো,,( আমি)
নাহ (ইশিতা)
এবার আমার সত্যি সত্যি রাগ উঠে গেল,,
আমি বিছানা থেকে উঠে ইশিতার দিকে অগ্নি দৃষ্টি নিয়ে তাকালাম,,,

ইশিতা একটু ভয় পেয়ে গেল,,এবং বলতে লাগলে,,আমার দিকে এভাবে চোখ লাল করে তাকালে কেন,,চোখ নামাও বলছি,,,(ইশিতা)

এবার আমি জোরে ধমক দিয়ে বললাম,, তোমাকে আমি এখান থেকে যেতে বলেছি,,,ইশিতা আমার ধমক শুনে কেপে উঠলো,,,এরকম ধমক হয়তো আমার কাছ থেকে আসা করেনি,,,

ইশিতা চুপ করে বাহিরে চলে যাচ্ছে,, আমি স্পষ্ট দেখতে পেলাম হাতের উল্টো পিঠ দিয়ে চোখের জল মুচছিল,,,আমি বিছানায় শুয়ে পড়লাম,,,

ঐদিকে ইশিতা আম্মুর সামনে গিয়ে দাড়ালো,,,আম্মু ইশিতাকে দেখে বলতে লাগলো,কি হল কাঁদছিস কেন,,,,
তোমার ছেলে আর সাভাবিক নাই,,,এ ৪বছরে অনেকটা পাল্টে গেছে,,,আমি আসার পর থেকে আমার সাথে একথা ও বলে নাই,,,ওর মাথা ব্যাথা করছে,,,আমি হাত দিয়ে ওর মাথা দিপে দিচ্ছি আমাকে বলে কি ওকে না ধরার জন্য,,আমাকে চোখ লাল করে ধমক দিয়েছে,,তোমার ছেলে সব সময় আমাকে ভয় পেতো,,আর এখন তোমার ছেলের চোখে দিকে তাকাইতে ভয়ে কেপে উঠলাম,,,আমি ওর এরকম অগ্নি দৃষ্টি চোখ কখনো দেখি নি,,,

((আম্মু)) আর এজন্য এভাবে কাঁদতে হবে ওর বুঝি মাথা ব্যাথা করছে তাই তোর সাথে এরকম করেছে

((ইশিতা))না না সত্যি সত্যি তোমার ছেলে পাল্টে গেছে,,

(আম্মু)) কিচ্ছু পাল্টায়নি ও যেমন ছিল তেমনি আছে,,একটু পরে দেখবি ভাল,,,,

রাত ৮ টা কারো গরম উষ্ণন নিঃশ্বাস আমার মুখে উপর পড়ছে,,আমি আসতে করে চোখটা খুলে দেখি,, ইশিতা আমার দিকে ঝুলে আছে,, এবং তীক্ষ্ণ দৃষ্টি নিয়ে আমার দিকে তাকিয়ে আছে,, ইশিতা ঠোঁট আমার ঠোঁটের এতোই কাছে যে দুজন দুজনার নিঃশ্বাস অনুভব করতে পারছি,, আমিও এক দৃষ্টি নিয়ে ঈশিতার মায়াবী চোখ জোড়ার দিকে তাকিয়ে আছি,,,ওর ঠোঁট অল্প অল্প কাপঁছে,,, কিছুক্ষণ আগে কান্নার কারণে এবং গাল এবং নাক লাল হয়ে আছে,,নাকের ডগায় কয়েক হাজার ছোট ছোট ঘামের ফোটা এসে জরো হয়েছে,,
৪ বছর পর ইশিতাকে আমি সেই মায়াবি রুপে দেখছি,,,যে মায়াবি রুপের সাগরে আমি অনেক আগেই নিজেকে হারিয়ে ফেলেছি,,,

দুজন নিস্তব্ধ নীরবতা পালন করতে লাগলাম,,আমার ৪ বছরের জমিয়ে রাখা গভির ভালবাসা জানান দিছিলো যে,, ইশিতার কাঁপা কাঁপা ঠোঁট গুলো নিজের আয়ত্তে নিয়ে নিতে,,গভীর এক লম্বা চুম্বনে হারিয়ে যেতে,,, পরক্ষনে আমার মনে হয়ে গেল শাকিব আর ঈশিতার কিছু মুহূর্তের কথা,, ধাক্কা দিয়ে আমার উপর থেকে ইশিতাকে সরিয়ে দিলাম, তার পর সোজা ওয়াশ রুমে ঢুকে তাস করে দরজাটা লাগিয়ে দিলাম,,, ইশিতা আমার এরকম ব্যবহারে অবাক হয়ে গিয়েছে,,এক দৃষ্টি নিয়ে আমার যাবার দিকে তাকিয়ে ছিল,,, ইশিতা হয়তো আমার কাছে এরকম কখনি আসা করেনি,, যে ছেলেটা কাছে বিরার জন্য সব সময় পাগল হয়ে থাকতো,, ৪ বছর পর ছেলেটার এত কাছে গেলাম,, ওর কোন অনুভূতি নাই,,,ইশিতা কিছুই বুঝতে পারছে না,, কেন তার সাথে এরকম করছে,,,

আমি ওয়াশ রুম থেকে বের হয়ে দেখি ইশিতা বিছানাটা গোচাছছে,,আমাকে দেখে একটা তোয়ালা এনে দিল,,,আমি তোয়ালাটা হাতে নিয়ে বিছানায় ডিল মেরে ফেলে দিলাম,,ইশিতা নিরবাক হয়ে আমার দিকে তাকিয়ে আছে,,আমি রুম থেকে বের হয়ে নিচে নেমে আসলাম,,

ডাইনিং টেবিলে আব্বু আম্মু বসে আছে,,আমাকে দেখে বলতে লাগলো মাথা ব্যাথা কমেছে তোর,,আমি মাথা ঝাকি দিয়ে হ্যা শব্দ উচ্চারণ করলাম,,,২ মিনিট পর ইশিতা উপর থেকে ডাইনিং টিবিলে আসলো,, মুখটা গোমরা করে আছে,,ঠোঁট গুলো শুকিয়ে একটা থেকে আরেকটা আলেদা হয়ে আছে,,যেন ঠোঁটে কোন প্রানের ছোঁয়া নেই,,চেহেরাটা অনেকটা কালো হয়ে আছে,,,ওর লম্বা চুল গুলো দিয়ে চেহেরার এক পাশ ঢেকে রাখছে,,,আর বার বার আর চোখে আমাকে দেখছে,,,

আম্মু ইশিতার তার দিকে তাকিয়ে বললো,,কি হয়েছে ইশিতা তোর,,ইশিতা মাথা ঝাকি দিয়ে বললো,,না কিছু হয়নি তো,,
তাহলে এভাবে দাড়িয়ে আছিস কেন বস?
ইশিতা আমার পাশ একটা চেয়ার টেনে বসলো,,,আমি অল্প খেয়ে টেবল থেকে উঠে পড়লাম,,,আম্মু জিজ্ঞাসা করল কি হলো উঠে পড়লি কেনো,,,আমার খাওয়া শেষ,,

ইশিতা বুঝতে পারছেনা, আমার এগুলো করার মানে কি,,আমি রুমে এসে বিছানায় শুয়ে পড়লাম,১০ মিনিট পর ইশিতা আমার রুমে আসলো,,,

ইশিতা আমাকে দেখে আমার মাথার পাশে এসে বসলো,, কি হয়েছে তোমার সত্যি করে বলতো,,কে এমন করছো,,

কে রকম করছি,,((আমি))

((ইশিতা))যে এত বছর পড়ে এসে আমাকে কাছে পেয়েও কোন ফিলিংস নাই তোমার,,,আমার সাথে ঠিকঠাক ভাবে কথা ও বলছোনা,,, অদ্ভুত সব আচরণ করছো,,,

আমি কোন অদ্ভুত আচরণ করছি না,, আমি ঘুমাবো লাইট অফ করো,,,((আমি))

((ইশিতা))তুমি সত্যিই অনেকটা পাল্টে গেছো,,,তুমি আর আমার আগের ফারাবী নাই,,, তুমি চেঞ্জ হয়ে গেছো,,,

আমি আগে যেমন ছিলাম এখন ঠিক তেমনি আছি,,,বেশি কথা না বলে চুপচাপ ঘুমাও তো,,,

ইশিতা সাথে সাথে আমার হাতটা ধরে ফেললো,,
আমি কি তোমার সাথে অন্যায় কিছু করেছি,বলো আমাকে,, যদি কিছু করে থাকি,,তাহলে আমাকে মারো বকা দাও,,কিন্তু আমার সাথে এরকম করোনা প্লিজ,,আমাকে ইগনোর করো না,,আমি তোমার এই অদ্ভুত আচরণ গুলো মেনে নিতে পারছি না,,

এই তোমাকে না বলছি আমি ঘুমাবো,,তোমার এই পেছের পেছের ভালো
লাগেনা আমার হাত ছাড়ো,, ((আমি))

ইশিতা আমার একথা শুনে কান্না শুরু করে দিল,,,কান্নার আওয়াজ পেয়ে আম্মু আমার রুমে চলে আসলো,,আম্মু বলতে লাগলো কি হয়েছে ইশিতা,,

দেখ তোমার ছেলে আমার সাথে কেরকম করছে,,,((ইশিতা))

কি হয়েছে ফারাবী তুই মেয়েটার সাথে এরকম করছিস কেন,,, ((আম্মু))

আমি কিছু করছি না,,ওকে বল কান্না থামাতে, আর না হয় অন্য রুমে গিয়ে কান্না করতে,,আমি ঘুমাবো((আমি))

না আমি এখান থেকে যাবো না,,আমি এ রুমেই কান্না করবো (( ইশিতা))

না গেলে আমি চলে যায়,,,আমি রুম থেকে বাহির হতে যাবো,,,এমন সময় ইশিতা কান্না করতে করতে রুম থেকে বাহির হয়ে গেল,

আম্মু পিছন থেকে ইশিতাকে ডাকছে কিন্তু ইশিতা শুনছে না,,,,আম্মু ইশিতার পিছনে যেতে লাগলো,,,

আমি দরজা লাগিয়ে বিছানায় শুয়ে পড়লাম,,কিন্তু কিছুতেই ঘুম আসছেনা,,বুকটা কেমন যেন খালি খালি লাগছে,,কিসের যেন অভাব,,,৪ বছর আগে বাহিরে যাওয়ার সময়,, ইশিতা আমার বুকে মাথা রেখে বলেছিল তোর এই বুকটা শুধু আমার জন্য বরাদ্দ,,এখানে আর কাউকে
থাই দিবি না,আমার বাকিটা জীবন তোর এই বুকে মাথা রেখে ঘুমাতে চাই,,,

এসব ভাবতে ভাবতে কখন ঘুমিয়ে গেলাম বলতে পারবো না,,,সকাল ১০টায় ঘুম ভাঙলো,,,আমি ফ্রেশ হয়ে নিচে নেমে,,, ঈশিতাকে দেখতে পাচ্ছিনা ,,,সারা রাত কোথায় ছিল,, কোন রুমে ছিল তাও জানিনা,,,আমি আম্মুকে ইশিতার কথা জিজ্ঞাসা করলাম,আম্মু বলতে লাগলো আমি জানিনা,,

তুমি জাননা মানে,,,(আমি)

৪বছর পরে এসে মেয়েটার সাথে এরকম ব্যবহার করতে পারলি তুই,,,মেয়েটা সারা রাত ড্রইরুমের সোফায় বসে কান্না করেছে,একটু ও ঘুমায় নি,,

এখন কোথায় (আমি)
চলে গেছে ((আম্মু))
চলে গেছে মানে কোথায় চলে গেছে,, (((আমি))

ওদের বাসায় ((আম্মু))
আম্মুর কথা শুনে আমার রাগ উঠে গেল,,যে কারনে ৪ বছর পরে এত কাছে আসার পরে ওকে আপন করে নিতে পারিনি,,,আবার ও না বলে ঐ বাড়িতে গিয়েছে,,,কেন গিয়েছে,,সাকিবের সাথে কথা বলার জন্য,, আমি একটা রিসকা নিয়ে ঈশিতার বাসায় চলে গেলাম,,,রাগ একটু ও কমেনি।।।।

(((চলবে))))

নতুন ভিডিও গল্প!


Tags: , , , , , , , , ,