সিনিয়র আপু যখন বউ (পর্ব-৮)

December 8, 2020 | By Admin | Filed in: চটি কাব্য, সিনিয়র আপু যখন বউ.

সিনিয়র আপু যখন বউ (পর্ব-৭)

View all stories in series

★বেচারা শামিম স্তব্ধ হয়ে আছে কিছু বলতে পারে না,,, আমি গালে হাত দিয়ে মাঠের চারদিকে তাকিয়ে দেখি,, সবাই আমাদের দিকে তাকিয়ে আছে, হয়তো এ ঘটনা বিরল,, তারপর আপু আমাকে উদ্দেশ্য করে বলল,,, চল বাসায় চল আজকে তোকে মজা দেখাবো,,,, আমার ত ভয়ে জান যাই যাই অবস্থা,,, আব্বু আম্মুকেও এতটুকু ভয় পাই নাই, আপু আমার হাত ধরে টেনে নিয়ে যাচ্ছে।।

★আমি শামীমকে ইশারাই বুঝালাম,,, দোস্ত সরি,, আপু তো আর জানে না,,, আমরা মাথা ফাটা নিয়ে অভিনয় করেছি, তারপর তিন আঙ্গুল দিয়ে শামীম কি বুঝিয়েছি,,, আমার খেলার 3000 টাকা,,,, শামীম বলল শালা বাগ,, আজকে তোর উপর দিয়া ঝড় যাবে।

আপু আমাকে নিয়ে রাস্তার একপাশে দাঁড়া করালো,,, সবাই আমাদের দিকে খিন দৃষ্টি নিয়ে তাকিয়ে আছে,,, অনেকে অনেক কথা বলতেছে ছেলেটার কি লাগে,, ছেলেটাকে এভাবে ধরে নিচ্ছে কেন,,, আরো নানান কথা,, আপুর সেদিকে কোনো ক্ষোভ নেই,,

তারপর আমাকে বলতে শুরু করল,, তোর তো সাহস কম না,,, তোকে আমি বলছি আমি রেডি হয়ে আসছি,, তুই এ সুযোগে খেলতে চলে আসলি,,, যদি কিছু একটা হয়ে যায়,,, আমি তোকে নিয়ে কত টেনশনে ছিলাম,,,, খালামণিকে বার বার ফোন দিয়ে জিজ্ঞাসা করলাম তুই বাসায় গিয়েছিস কিনা। খালামণি বললো তুই যাস নাই,।
এ কথা বলার মাঝে হঠাৎ করে আমার ফোন বেজে উঠলো,,,

আমি মোবাইলটা বের করে দেখি আমার ব্রেস্ট ফ্রেন্ড রিয়া ফোন দিয়েছে,,,।

আপু আমার হাত থেকে টান দিয়ে মোবাইলটা চিনিয়ে নেই,, তারপর মোবাইলের দিকে তাকিয়ে দেখে রিয়ার ফোন,,, আপু ফোনটা রিসিভ করে,, রিয়াকে নানান কথা বলতে থাকে,, ও কেন ফোন দিয়েছে,, কি জন্য ফোন দিয়েছে,, আরও অনেক কথা বলতে থাকে,,,

এদিকে আমার রাগ চরমে উঠে যায়,,, বেচারী রিয়া মনে হয় ওইদিকে কান্না করতেছে,,,, আপর কথা শুনে। আপু ফোনটা শেষ করে আমার হাতে মোবাইলটা দিয়ে,,,আপু আমার দিকে তাকিয়ে আছে,,, হয়তো বুঝতে পেরেছে আমি রেগে আছি,।তার পর বললাম,,তুমি ওকে এগুলা বললে কেন,।

(আপু) বলেছি বেশ করেছি ও তকে ফোন দিবে কেন।

(আমি) দেখো আপু ও আমার বেস্ট ফ্রেন্ড ও আমাকে যখন খুশি তখন ফোন দিতে পারে,,, তাই বলে তুমি তাকে এগুলো বলতে পারো না,,, তোমার সে অধিকার নাই,,,

(আপু)কি ইইইইই আমার থেকে রিয়ার তোর কাছে দাম বেশি ।
(আমি) এখানে দামির কথা আসছে কেন। রিয়া আমার বেস্ট ফ্রেন্ড ওর জায়গা এক জায়গায় আর তোমার জায়গা আরেক জায়গায়।।।।
আর আমাকে নিয়ে তোমার এত টেনশন করার কি আছে,, আমার আম্মু তো আমাকে নিয়ে টেনশন করে না।আর এই যে আমাকে থাপ্পর দিয়েছো আমি কিছু মনে করি নাই,,, কিন্তু সত্যি আমি আজকে লজ্জা পেয়েছি,,, এখানে আমার বন্ধুবান্ধব সবাই আছে,, ওরা আমাকে নিয়ে কলেজে হাসাহাসি করবে।

আমি এতক্ষণ রাগে চোখ নিচে নামিয়ে সবগুলো কথা আপুকে বলে ফেললাম,, আপুর চেহারার দিকে খেয়াল ও করি নাই,, আপু মনে হয় বাকরুদ্ধ হয়ে গেছে হয়তো কখনো আশা করে নাই আমি এ কথা গুলো বলব,,, কিন্তু রিয়ার সাথে খারাপ ব্যবহারের কারণে আমি রাগে কথা গুলো বলে ফেললাম।।

তার পর আমি আপুর দিকে তাকিয়ে দেখি চোখে পানি টলমল করছে একটু পরেই বৃষ্টি হয়ে সব ঝরে পড়বে।

আমি আর কিছু না বলে সোজা হাটা শুরু করলাম,,,।। আপু পিছন থেকে ডাক দিয়ে বলছে কোথায় যাচ্ছিস,,, আমি বললাম বাসায় যাচ্ছি,,,।

(আপু) আমি তোকে দিয়ে আসি,,,তুই একা যেতে পারবিনা,,,

((((( এতক্ষণ শরীরের সব শক্তি দিয়ে 6 “” 4 মারলাম,,, 1 রানের জায়গায় 2 রান নিয়েছি খেলা জেতার জন্য,,,, আর এখন একা হেঁটে বাসায় যেতে পারবো না,,,হি হি হি মনে মনে)))))

(আমি)না একাই যেতে পারবো।।

★আমি হাঁটতে হাঁটতে বাসায় চলে আসলাম,,
ওইদিকে মনে হয় আপু আমার এমন ব্যবহারে অনেক কষ্ট পেয়েছে।

★ বাসার সামনে এসে মাথার ব্যান্ডেজটা খুলে ফেললাম তা নাহলে আম্মু যদি বাইসেস দেখে ফেলে,,, তাহলে বড় ধরনের কাবজাব হয়ে যাবে,, সেজন্য ব্যান্ডেজটা খুলে বাসায় ঢুকলাম বাসায় ঢোকার সাথে সাথে আম্মুর চিল্লিয়ে উঠলেন তোর মাথায় রক্ত কেন??

হায় আল্লাহ ব্যান্ডেজ খুলেছি ঠিকই কিন্তু রক্ত জাতীয় মেডিসিনটা পরিষ্কার করতে মনে নাই,, এখন আম্মুকে যেকোনো একটা বলে কাটাতে হবে,,,
এইতো আম্মু বন্ধুরা মজা করে লাল রং মাথায় লাগিয়ে দিয়েছে,।
(আম্মু) দেখে তো মনে হয় না লাল রং আমার তো মনে হয় সত্যিই রক্ত।
(আমি)না আম্মু বিশ্বাস না করলে তুমি হাত দিয়ে দেখো?? আম্মু হাত দিয়ে দেখলো সত্যি সত্যি লাল রং,,, আমি জোরে একটা নিঃশ্বাস ফেললাম??

★ রুমে এসে পকেট থেকে মোবাইলটা খুলে দেখি ঈশিতা আপুর ৯ টা ফোন,,, দেখতে দেখতে আপুর আবার ফোন আসলো,,, আমি ফোনটা কেটে দিলাম?

★ ফোনটা কেটে রিয়াকে ফোন দিলাম কয়েকবার দেওয়ার পরেও রিয়া ফোন তুলল না,,, হয়তো বেচারী রাগ করেছে?
আরো তিন চার বার ফোন দেওয়ার পর,,, রিয়া ফোন তুলল।

(আমি) হ্যালো রিয়া?
(রিয়া) ……………?

(আমি) কি হল কথা বলিস না কেন?
(রিয়া)…………?
(আমি) আরে বাবা এক লিস্ট কথা তো বলবি?
(রিয়া)😅😅😅কি বলব?
(আমি) আরে পাগল কান্না করিছ কেন।
দেখ আই এম সরি,,আসলে আপুকে আজেক এক কারণে রাগিয়ে দিয়ে ছিলাম।
আপুর রাগের সময় তুই ফোন দিলি,,আপু আমার হাত থেকে মোবাইলটা চিনিয়ে নেই। আপু জানে না কে ফোন দিয়েছে,, না দেখেই উল্টাপাল্টা কথা বলা শুরু করে দিয়েছে,,,, আর তুই তো জানিস আপুর একটু রাগ বেশি?
(রিয়া) আপুর রাগ উঠেছে আমি কি করব,,তাই বলে আমাকে এতগুলো কথা শুনাবে।?
(আমি) আরে পাগলি রাগ করিস না,,, আপুর হয়ে আমি তোর কাছে সরি বলতেছি??
(রিয়া) তুই আপুর হয়ে তুই স্যরি বলবি কেন”” আপুর সাথে তোর কোনো আছে নাকি?
(আমি)ছিঃ ছিঃ কি বলিস তুই এগুলো,,, আপু আমার বড়,,, আপু কে সম্মান করি শ্রদ্ধা করি”!আমি তোর দ্বারা এ কথাটা আশা করিনি??
(রিয়া) তাহলে তোর ফোন আপু ছিনিয়ে নেই কেনো?
(আমি) আরে পাগল আমি বললাম না,,,, আপুকে এক কারণে রাগিয়ে দিয়েছি,, তখন আপু আমাকে শাস্তি দিতেছিল তখন তুই ফোন দিলি,,,,আপুর জিদ আরো বেড়ে গেল।। তখন আমার কাছ থেকে মোবাইলটা নিয়ে তোকে কথাগুলো শুনে দিয়েছি?
(রিয়া) আচ্ছা বাদ দে,,, তুই সন্ধ্যার দিকে ওয়াদা দিয়ে আসলি না কেন,,, তুই জানিস আমি কতক্ষণ ধরে তোর জন্য ছাদে বসে ছিলাম?
(আমি) স্যরি রে স্যরি আসলে একটা কাজের জন্য আসতে পারেনি প্লিজ মাফ করে দে? কালকে তোকে কলেজের পরে এক জায়গায় নিয়ে যাবো ঘুরতে?
(রিয়া) সত্যি?
(আমি)হুম সত্যি?
(রিয়া) আবার নি কলেজের পরে তোর মনে না থাকে?
(আমি) থাকবে ১০০% থাকবে এখন রাখি,, কালকে কলেজে দেখা হবে?
( রিয়া) ওকে বাই গুড নাইট?
(আমি) গুড নাইট??
রিয়ার সাথে কথা বলা শেষ করে মোবাইলের দিকে তাকিয়ে দেখি ২১ টা ফোন,, বন্ধু শামীম ৭ টা আপুর ১৪ টা আপুর তার তার মানে আপু এতক্ষণ আমার ফোন ওয়েটিং এ পেয়েছে,,, হায় আল্লাহ না জানি কতটা রেগে আছে,,,, এখন ফোন দেওয়া যাবে না,,,,, তাই শামীম কে ফোন দিলাম? হারামি বন্ধু আবার মনে করে দিয়েছে ট্রিট এর কথা,,, ওকে বললাম 10 টার দিকে আসবো,,আর আমার খেলার 3000 টাকা রাখার জন্য??? ওটা দিয়ে ওই ওদের ট্রিট দিব?
রুমে বসে ল্যাপটপে আমার প্রিয় কণ্ঠশিল্পীৃ তাহাসান রহমানের কয়েকটা গান শুনলাম,,,, 9.40 আম্মুকে বললাম আমার এক বন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে একটা পার্টির আয়োজন করেছে,, আমাকে ইনভাইট করেছে আমার আসতে দেরি হবে? আম্মু বলল আজকে নাকি 10.00 টা দিকে আব্বু চট্টগ্রাম থেকে বাড়িতে আসবে,,, এসে যদি আমাকে না পাই তাহলে রাগারাগি করবে,,, আমি আম্মুকে বললাম তাহলে বন্ধুদের সাথে একটু আড্ডা দিয়ে চলে আসব,,, তার ভিতরে যদি আব্বু চলে এসে তাহলে আব্বুকে একটু ম্যানেজ কর?

হাঁটতে-হাঁটতে চাইনা গ্রিল রেষ্টুরেন্টে পৌছে গেলাম,, হারামি বন্ধু গুলো আগেই বসে আছে,,, যাওয়ার প্রথমেই জিজ্ঞাসা করলাম খেলা কে জিতেছে,,, বন্ধু বলল আমরা জিতেছি,,, তাহলে আমার খেলা 3000 টাকা দিয়ে,,, হারামি বন্ধু বলল দিব আগে খাবার অর্ডার দে,,, আমি খাবার অর্ডার দিলাম,,,, খাওয়া দাওয়া শেষ করে,, আরো অনেক কিছু খাওয়ার ইচ্ছে ছিল,,, কিন্তু আজকে আব্বু বাড়িতে আসবে,,, সেই ভয়ে আর কিছু খাই নাই?? বিল পেমেন্টের কাগজটা আমি দেখি নাই,,, তার আগেই বন্ধুকে বললাম খেলার টাকা দে,,,, হারামি বন্ধু বলল দোস্ত আজকে তো আনি নাই,,, কালকে কলেজ শেষে তোকে দিয়ে দিব,,,,

তাই বাধ্য হয়ে বিল পেমেন্ট করতে গেলাম,, হঠাৎ করে বিলের কাগজটার দিকে নজর গেল,, থমকে দাঁড়ালাম এত টাকা 7390 টাকা বিল প্রেমেন্ট না করে আবার ফিরে বন্ধুদের কাছে গেলাম। হারামিরা টাকা বের কর 7390 টাকা বিল আসছে,, এত টাকা পকেটে নিয়ে কোনো লোক বের হয়। কোন সময় হাইজ্যাকার রা কি করে বসে।।। আর তোরা ভাবলি কি করে এত টাকা আমার কাছে থাকবে। টাকা বের কর?

(বন্ধু) দোস্ত কোটিপতি বাবার একমাত্র মেয়ে দেখতে অসম্ভব সুন্দরী কিছুদিন পর টাকা আর সুন্দরী ললনা তোর হবে,,, ঝামেলা না করতে চাইলে,,, বিল দিয়ে দে।
(আমি) কি বলতে চাস,আর কার কথা বলছিস।

(বন্ধু) কেন ঈশিতা আপু যাকে ভার্সিটিতে এক নামে চিনে? সুন্দরী ললনা?
(আমি) ছিঃছিঃ কি বলিস এগুলো তারা আমার আপু লাগে বড় আপু,, তাকে নিয়ে তোরা এগুলা বলতে পারিস না???
(বন্ধু) শালা হারামী আমাদের সাথে সাধু সাজা হচ্ছে,,, তোর সাধু সাজা বের করছি এখনই?
(আমি)কি করবি।
(বন্ধু) ঈশিতা আপুকে এখন ফোন দিয়ে বলবো তুই আমাদের সাথে খারাপ আড্ডায় আছিস।।।
(আমি)কি ইইইইই, আমাকে ভয় দেখাস দে তোর ঈশিতা আপুকে ফোন,,, তার বাপের টাকা দিয়ে খাই,,, তা কি করবে দে ফোন দে,,,
(বন্ধু) সত্যি তো?
(আমি) আরে ব্যাটা সত্যিনি তিন সত্যি??
এক কথা বলতে দেরি বন্ধু হারামি ফোন দিতে দেরি না,,। পাখি খাচাই বন্দি হলে যে দশা আমার এখন এ দশা,, দোস্ত কে বিনয় সুরে বললাম,, আমার কাছে এত টাকা নাই রে,,, তোরা কিছু দিস কাস্ট কর? আমি সত্যি বলছি,, এ কথা বলার পর হারামি গুলার দিল একটু নরম হইছে,,, ফোন কেটে দিয়েছে,,,, কিসের ফোন দিছে কে জানে,,, হয়তো আমাকে ভয় দেখানোর জন্য এমনি এমনিই নাটক করলো,,, আবার হারামী গুলাকে দিয়ে বিশ্বাস নাই ফোন দিয়ে দিতেও পারে,,,,৪ জনে ২০০০ টাক দিল আর আমি বাকি টাকা দিয়ে,, বিল প্রেমেন্ট করলাম,,,, বন্ধুদের সাথে আর কিছুক্ষণ আড্ডা দিয়ে বাসায় চলে আসলাম,,, বাসায় এসে দেখি আব্বু এখনো আসে নাই,,,,, আমি আমার রুমে গিয়ে শুয়ে পড়লাম,,, ১২.১০ হঠাৎ করে আমার রুমে খটখট শব্দ দরজা খুলে দিলাম দেখি আব্বু দাড়িয়ে,,, আমি আব্বুকে সালাম দিলাম,, কখন আসল জিজ্ঞাসা করলাম,, তারপর আব্বু বলল রাতে খেয়েছ,,, আমি বললাম জি আব্বু খেয়েছি,,,, ঠিক আছে ঘুমিয়ে যাও সকালে কলেজে যেতে হবে না,,, আমি মাথা ঝাকিয়ে হ্যাঁ সূচক ইঙ্গিত দিয়ে শুয়ে পড়লাম,।।

রাত ১..২০ হঠাৎ করে আবারও আমার রুমের দরজায় খটখট শব্দ,, ঘুমে কাতর হয়ে দরজা খুলে দিলাম,,, দেখি আম্মু আব্বু দারিয়ে,,২ সেকেন্ডের ভিতর আমার ঘুম পালিয়ে গিয়েছে।

আমি বললাম কি হয়েছে। আম্মু বলল ঈশিতা আপু নাকি সন্ধ্যা থেকে কিছু না খেয়ে রুমে একা দরজা বন্ধ করে কান্না করছে,,।

((((((চলবে))))))★

নতুন ভিডিও গল্প!


Tags: , , , , , , , , ,