ঈশ্বর অথবা যৌনতার গল্প – সুপ্রিয় সাহা

April 4, 2021 | By Admin | Filed in: বিখ্যাত লেখকদের সাহিত্যে যৌনতা.

অ’তনুর নামগন্ধ

…..আমি দেখলাম সােমা’ অ’তনুকে জড়িয়ে ধরে চুমু খাচ্ছে। সােমা’র শাড়ির আঁচল বুক থেকে গড়িয়ে পড়েছে। অ’তনুর হা’তও সেখানে বেশ খেলা করছে। সােমা’ এক হা’ত দিয়ে অ’তনুর চুল আর অ’ন্য হা’ত দিয়ে ওর পিঠ খামচে ধরতে চাইছে। একটা’ মেয়ে একটা’ ছেলেকে চুমু খেতে শুরু করলে যা যা হয় এরপর ঐ সবকিছুই যে ঘটবে তা স্পষ্ট বােঝা যাচ্ছিল।….

…রাত বাড়ছে। পাশের ঘরে অ’তনুর চলাফেরার টুকটা’ক শব্দ হচ্ছে। আমা’র মনের ভিতরটা’ পাকিয়ে উঠছে খালি’। বি’ছানায় শুয়ে শুয়েও ঘুম আসছে না। সােমা’ এখন কাপড় বদলাচ্ছে। ওর শরীরে এখন খালি’ সায়া আর ব্লাউজ। আস্তে আস্তে ও ব্লাউজের পিছনের হুকগুলাে খুলছে। ঘর প্রায় অ’ন্ধকার। বাইরের স্ট্রিট লাইটের আলাে জানলার ফাক দিয়ে এসে ওর খােলা পিঠের উপর পড়ছে। গােটা’ পিঠটা’ এক সমুদ্রতটভূমির মতাে চিকচিক করে উঠছে। আমি যে কখন বি’ছানা ছেড়ে উঠে পড়েছি আমা’রই খেয়াল নেই। ধীরে ধীরে এগিয়ে গিয়ে পিছন থেকে সােমা’কে জড়িয়ে ধরতেই ও চমকে উঠল। ওর উন্মুক্ত স্তন যুগল আমা’র হা’তের মুঠোয়। ওর কঁাধের ধার ঘেঁষে আমা’র খসখসে জিভ নেমে আসছে নীচে। ওর গােটা’ শরীরটা’ই সােহা’গে কেঁপে কেঁপে উঠছে। আমি ওকে কোলে তুলে নিয়ে ফেললাম বি’ছানায়। ওর দুচোখ বন্ধ, যা প্রবেশের অ’নুমতি। এবার আমা’র নিজের শরীরটা’ই কেমন গুলি’য়ে উঠল। আমি তাে কিছুটা’ পরীক্ষা করতে চাইছিলাম, যদি আজ দুপুরেই কিছু একটা’ হয়ে থাকে তবে নিশ্চয় ও রাত্রে রাজি হবে না, কারণ ধরা পড়ে যাওয়ার একটা’ সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু ওকে দেখে তাে সেরকম কিছুই মনে হচ্ছে না। আমি কি তবে ভুল দেখলাম?……..

……..আমা’র শুধু সেদিনের দেখা দৃশ্যটা’র কথা মনে পড়ছে। সােমা’কে আমি এত বছরে না হলেও কয়েকশাে বার আদর করেছি, কিন্তু সেদিন অ’তনুর সাথে ওকে যেভাবে দেখলাম সেভাবে পাইনি কখনও। সেদিন ওর সারাশরীর যেন শুধু অ’তনুর নামেই উৎসর্গ করেছিল। অ’তনুর মুখের মধ্যে বার বার ওর কামা’র্ত ঠোট জোড়া চেপে ধরছিল। আমি আর ভাবতে চাই না।…….

ছােট পাড়ার ঘটনা

….আমি নিজেকে বাষ্পীভূত করে মিশিয়ে দিলাম দুখণ্ড পাথরের উপর নতজানু সী-গালের যােনি বেয়ে নেমে আসা অ’মৃ’তের কুন্ডে তখন নিভে আসা আগুন তার অ’স্তিত্ব রক্ষা করছে বি’লীন হওয়া ছাইয়ের মধ্যে খুঁজছে মা’নুষের স্বর মা’নুষের জন্ম তার পবি’ত্র নাভিকুণ্ড জন্ম কি এখনও বাকি সকলের এই পৃথিবীর কি জন্ম লি’খে দিয়েছে নস্ট্রাডুমস পরজন্মের হিসেব কি মিলাতে পেরেছাে হে রতিসর্বজ্ঞ মহীয়সী কতটা’ জলপূর্ণ হলে কলসি তার বি’লাপ শােনাবে না আর কোনােদিন…….

যৌনতা অ’থবা ঈশ্বরের গল্প

বি’দিশা

বি’দিশা তার নােংরা পাছাটা’ আমা’র হা’ঁ মুখের সামনে তুলে এনে কিছুটা’ বেড়ে যাওয়া নখ দিয়ে খুঁটে খুঁটে দেখাতে চাইল তার ফর্সা জিন্স ভেদ করে ‘ঠিক এইখানে ঠিক এইখানে’ ফেঁড়াটা’ হয়েছে। আমা’র ব্যাপারটা’তে একটু ঘেন্না যে করছিল না তা নয় কিন্তু সেটা’ বােঝাতে পারলাম না মুখের অ’ভিব্যক্তিতে কারণ বি’দিশা তখন আমা’র দিকে মুখ ফিরিয়ে ছিল না। আমি হা’ত দিয়ে দেখতে পারিনি, হা’তের উপর আমা’র কন্ট্রোল নেই কোনাে! 

পরে মনে হল এভাবে বি’ষয়টা’ খােলসা না করলেও পারত ও, যদিও কিছুটা’ আমিই দায়ী, কারণ বড্ড বেশি আমুদে হয়ে পড়েছিলাম ক’দিন। ও যে ‘সত্যি সত্যি শরীরে ব্যাথা বারবার বলছে তা আমা’র ঠিক বি’শ্বাস হয়নি। আমি ওর পাছার ওঠা নামা’র চেয়ে বেশি মন দিলাম ফর্সা জিন্সটা’তে, যেটা’ সম্ভবত গত বছর কিনেছে, কারণ সে বছর ওর কোমরের সাইজ বেশ কম ছিল আর ওটা’ সে পড়তে পারেনি, এবছর পরার জন্য তুলে রাখায় জিন্সটা’। আমা’র চোখে নতুনের মতাে ঠেকল। ওকি জানত যে একবছরে ওর কোমরের সাইজ এতটা’ বেড়ে যাবে!…..

বি’দিশার সাথে কিছুটা’ সময়

…..বি’দিশা এখন আমা’র বি’ছানার পাশ থেকে উঠে গেছে। একে একে সালােয়ার, জিন্স ও প্যান্টি খুলে রাখছে। ও প্যান্টিটা’ ঝুলি’য়ে রাখল এই ঘরটা’র দেওয়ালের একমা’ত্র জংধরা ওয়াল হ্যাঙ্গারটা’তে যেখানে কিছুদিন আগেও আমি আমা’র জাঙ্গিয়া রাখতাম। এখন আর রাখি না কারণ আমি জাঙ্গিয়া পরা ছেড়ে দিয়েছি। বি’দিশার শরীর এখনও পুরােপুরি নগ্নতায় ভরে ওঠেনি। আমি আর অ’পেক্ষা করতে পারছি না—ওহ ভগবান!…..

…….এখন ওকে মা’নসচোখে দেখা ছাড়া আর কোনাে উপায় নেই। আমি দেখছি…বি’দিশা এবার দুহা’ত উপরে তুলে প্রথমে ওর নীল রঙা টেপ জামা’টা’ খুলছে, এরপর ধীরে ধীরে ব্রা-টা’ খােলার চেষ্টা’য় ব্যর্থ হয়ে আমা’র দিকে পিছন ফিরে এগিয়ে আসছে। কিন্তু আমি মা’েটেও সেদিকে খেয়াল না করে তাকিয়ে আছি ওর নগ্ন পাছা জোড়ার দিকে, থলথলে মা’ংস যেখানে নড়ে চড়ে বেড়াচ্ছে একতাল নরম এঁটেল মা’টির মতাে। যাকে নিয়ে যেমন খুশি খেলা যায়, যা খুশি বানানাে যায় আবার নিমেষে চটকে চুরমা’র করাও যায়। আমা’র হা’তজোড়া এগিয়ে যাচ্ছে, নিশপিশ করছে, ওর কোমড় ধরে আমি এখনই ঝুলে পড়তে চাই। ও আমা’র হা’ত দুটোকে নিষ্ক্রিয় করে নিজে নিজেই ব্রাটা’ খুলতে সক্ষম হয়ে ঘুরে দাঁড়ায় আমা’র দিকে। ওর বুক দুটোকে নিটোল বলা যায় না, সেই নিটোলত্ব ধরে রাখার মতাে ইলাস্টিসিটি ওদের অ’নেকদিন আগেই নষ্ট হয়েছে। তবুও আমি ওকে দেখতে থাকি, যেন শেষবার, এটা’ই শেষবার।…

…..আমি উঠে গিয়ে রান্নাঘরে ওর পিছন থেকে ওকে জাপটে ধরি। ও বাধা দেয় না। পাতলা নাইটি ভেদ করে ওর গােটা’ শরীর আমা’র শরীরের সাথে লেপটে থাকে। আমরা দুজনেই চুপচাপ।…..

আমা’র সাথে বি’দিশার সম্পর্কটা’ যেরকম

…….কফিশপের ঠান্ডা বাতাসে আমা’র মনপ্রাণ জুড়িয়ে এলে দেখলাম অ’ন্ধকার নামছে ছােট্ট টেবি’লটা’য়, মা’থার উপর থেকে একটা’ আলাে, শুধু বি’দিশার মুখকে রঙিন আর মা’য়াবি’ করে তুলেছে। আমি ওর মুখ দেখলাম, ঘাড় দেখলাম, তারপর বুক, হা’ত, পা, টেবি’লের এধারে বসে আর যা যা দেখা যায় সব দেখলাম। ওর বুক দুটো হা’লকা সালােয়ারের বাধা ভেদ করে বেরিয়ে আসছে।….

……বি’দিশা সােফার উল্টোদিকে একটু ঘুরে গিয়ে টা’কাপয়সাগুলােতে খচমচ শব্দ তুলে ওর বুকের ভিতর ঢুকিয়ে নিয়ে আমা’র দিকে ঘুরলে আমা’র হা’সি পেয়ে যায় এবং তা চেপে রেখেই বলি’, আচ্ছা এবার আমি দেখি ওগুলাে কীভাবে বার করা যায়!

ও ‘না-না’ করে কিছুটা’ সরে যেতে চেয়ে ব্যর্থ হয়, কেননা আমি ততক্ষণে ওকে আষ্ঠেপৃষ্টে জড়িয়ে ফেলেছি। আমা’র হা’ত ওর বুকের মা’ঝের ব্লাউজের টা’ইট ফাক গলি’য়ে বেশ কিছুটা’ ভেতরে ঢুকে গেছে। এবং সেখানে পয়সার বদলে খেলা করছে বি’দিশার নরম স্তন, বাদামি বোঁটা’। এরপর দ্রুত অ’ভ্যস্থ হা’তে ওর ব্লাউজের বােতামগুলাে এক এক করে খুলতে খুলতে ওকে মেঝেতে শুইয়ে নিই। আমা’র ওপর হা’ত ততক্ষণে নেমে গেছে ওর গােলাপি প্যান্টির অ’ন্দরে।….

Please follow and like us:

: Allowed memory size of 41943040 bytes exhausted (tried to allocate 348160 bytes) in

নতুন ভিডিও গল্প!


Tags: , , , , , ,